Text size A A A
Color C C C C
পাতা

সিটিজেন চার্টার

১ম ধাপঃমাঠ পর্যায় ও তসদিক স্তরে প্রস্ত্ততকৃত রেকর্ড যাচাই/বাছাইসহ খতিয়ানের নামের আদ্যাক্ষরের ক্রমানুসারে 

  খতিয়ান সাজানো এবং খতিয়ানের বিপরীতে ডিপি নম্বর পুণর্বিন্যাস করা ;

২য় ধাপঃএক্ষেত্রে কোন ভুলত্রুটি বা অসামঞ্জস্য বিষয় পরিলক্ষিত হলে মিস্টেক চিহ্নিত করে প্রয়োজনীয় সংশোধন

  করা ;

৩য় ধাপঃপ্রযোজ্য ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট ভূমিমালিকগণকে নোটিশের মাধ্যমে তাদের উপস্থিতিতে খতিয়ান সংশোধন করা ।

 

iv)     খসড়া প্রকাশনাঃ

 

১ম ধাপঃতসদিকোত্তর যাঁচ পর্যায়ে ভূমি মালিকের নামের আদ্যাক্ষর অনুসারে সাজানোর পর পুণঃ বিন্যাসকৃত ডিপি

  খতিয়ান দেখে তসদিক পরবর্তী ভুলত্রুটি ও অসামঞ্জস্য বিষয় সমূহ সংশ্লিষ্ট ভূমি মালিকগণের অবগতির

  জন্য ৩০ কার্যদিবস ডিপি খতিয়ান সমূহ ভূমি মালিকগণের দেখার  জন্য একজন রাজস্ব ক্ষমতা সম্পন্ন

  কর্মকর্তার তত্ত্বাবধানে খোলা রাখা হয় ;

২য় ধাপঃভূমি মালিকগণ ডিপি খতিয়ান সমূহ দর্শন ও পর্যাবেক্ষণে কোন ত্রুটি-বিচ্যুতি প্রাপ্ত হলে উহার সংশোধন দাবী

  করে সংশ্লিষ্ট খতিয়ানে আপত্তি কেস দায়ের করবেন।

v)      আপত্তি স্তরঃ

১ম ধাপঃখসড়া প্রকশানার সময়ে বি,টি রুলের ৩০ বিধি মতে ভূমিমালিকগণ কর্তৃক দায়েরকৃত আপত্তি কেস সমূহ তসদিক অফিসারের সিনিয়র একজন রাজস্ব ক্ষমতা ও সহকারী সেটেলমেন্ট অফিসারের ক্ষমতা প্রাপ্ত অফিসার কর্তৃক শুনানী কর্মসূচী গ্রহণপূর্বক পক্ষগণকে নোটিশ জারী করা ;

২য় ধাপঃনোটিশ যথাযথ জারী সাপেক্ষে সংশ্লিষ্ট পক্ষগণের উপস্থিতিতে আপত্তি কেসের শুনানী দিয়ে নিষ্পত্তি করা।

vi)    আপীল স্তরঃ

১ম ধাপঃআপত্তি কেসে সংক্ষুদ্ধ পক্ষ কর্তৃক সংশ্লিষ্ট আপত্তি কেসের সার্টিফাইড কপি সংযুক্ত পূর্বক আপীল কেস দায়ের করা ;

২য় ধাপঃবি,টি রুলের ৩১ বিধি মতে সংক্ষুব্ধ ভূমিমালিকগণ কর্তৃক দায়েরকৃত আপীল কেসসমূহের শুনানীর জন্য একজন আপীল শুনানী ক্ষমতা সম্পন্ন সহকারী সেটেলমেন্ট অফিসার কর্তৃক শুনানী কর্মসূচী গ্রহণপূর্বক (জোনাল সেটেলমেন্ট অফিসার কর্তৃক কেস বরাদ্দ সাপেক্ষে) পক্ষগণকে নোটিশ জারী করা ;

৩য় ধাপঃনোটিশ যথাযথ জারী সাপেক্ষে সংশ্লিষ্ট পক্ষগণের উপস্থিতিতে আপীল কেসের শুনানী দিয়ে নিষ্পত্তি করা।

vii)    চূড়ান্ত যাঁচঃ

আপত্তি ও আপীল স্তরে দায়েরকৃত আপত্তি/আপীল কেসের রায়ের মাধ্যমে প্রনীত খতিয়ানের কলামসমূহ পর্যবেক্ষণ করতঃ কোন ত্রুটি-বিচ্যুতি পাওয়া গেলে মিস্টেক চিহ্নিত করেপ্রয়োজনবোধে পক্ষগণকে শুনানী দিয়ে যথাযথভাবে নক্শা ও রেকর্ড সংশোধন করা হয়।

viii)   চূড়ান্ত প্রকাশনাঃ

১ম ধাপঃমৌজার মুদ্রিত রেকর্ড (খতিয়ান) ও নক্শা প্রাপ্তি ;

২য় ধাপঃএকজন রাজস্ব কর্মকর্তার অধীনে ৩০ (ত্রিশ) কার্যদিবস মাঠ পর্যায় থেকে বিভিন্ন স্তরে প্রনীত/সংশোধিত ভূমি মালিকগণের খসড়া খতিয়ানের সাথে মুদ্রিত খতিয়ান ও নক্শার মিল করে দেখার জন্য খোলা রাখা ;

৩য় ধাপঃএ সময়ে ভূমিমালিকগণ সরকারী নির্ধারিত হারে (প্রতি খতিয়ান ৬০/- টাকা ও প্রতিটি নক্শা ৩৫০/- টাকা) হারে নিজ নিজ নামের মুদ্রিত খতিয়ান এবং মুদ্রিত নক্শা সংগ্রহ করতে পারেন ;

৪র্থ ধাপঃখসড়া খতিয়ান ও নক্শার সহিত মুদ্রিত খতিয়ান/নক্শার কোন অমিল পরিলক্ষিত হলে প্রয়োজনীয় সংশোধনের জন্য সংশ্লিষ্ট ভূমিমালিক কর্তৃক নির্ধারিত ফরমে জোনাল সেটেলমেন্ট অফিসারের নিকট আবেদন করা ;

৫ম ধাপঃচূড়ান্ত প্রকাশনাকালীন ভূমিমালিকগণ কর্তৃক দাখিলকৃত দরখাস্তের ভিত্তিতে ৫৩৩/৫৩৪ ধারায় খতিয়ান সংশোধন ও ৫৩৭ ধারা মতে নকশার ত্রুটি সংশোধন করা।

ix)     হস্তান্তরঃ

মুদ্রিত খতিয়ান ও নক্শা প্রয়োজনীয় সংশোধন শেষে গেজেট বিজ্ঞপ্তি ও রেকর্ড ভলিউম বাধাই অন্তে চূড়ান্তভাবে প্রকাশিত রেকর্ড ও নকশাসহ যাবতীয় রেকর্ড পত্র জেলা প্রশাসক বরাবর হস্তান্তর করা হয়।

৬।    সিটিজেন চার্টারঃ

এ কার্যালয়ের পৃথক কোন অনুমোদিত সিটিজেন চার্টার নেই। ভূমি রেকর্ড ও জরিপ অধিদপ্তরের সিটিজেন চার্টার অনুসরণ করে কার্যক্রম পরিচালিত হয়ে থাকে (অধিদপ্তরের সিটিজেট চার্টারের কপি সংযুক্ত)।

৭।     গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্পসমূহ (যদি থাকে)ঃ

এ কার্যালয়ের অধীনে কোন প্রকল্প চলমান নেই।

৮।    সাংগঠনিক কাঠামোঃ

ডায়াগ্রামাকারে এ কার্যালয়ের সাংগঠনিক কাঠামো সংযুক্ত করা হলো।

৯।     কর্মকর্তাবৃন্দঃ

প্রত্যেক কর্মকর্তার আলাদাভাবে প্রোফাইল ফরম পূরণ করে সংযুক্ত করা হলো।

১০।   তথ্য প্রদানকারী কর্মকর্তাঃ

জনাব ফকির মোশারফ হোসেন, সদর সহকারী সেটেলমেন্ট অফিসার (অতিঃ দায়িত্ব), জোনাল সেটেলমেন্ট অফিস, খুলনা।

১১।   কর্মচারীবৃন্দঃ

এ কার্যালয়ে কর্মরত প্রত্যেক কর্মচারীর আলাদাভাবে প্রোফাইল ফরম পূরণ করে সংযুক্ত করা হলো।

১২।   ফটোগ্যালারী (অফিসের বিভিন্ন কার্যক্রমের ছবি)ঃ

এ কার্যালয়ের বিভিন্ন কার্যক্রমের বিষয়ে ছবি সংরক্ষণ করা হয়নি।

১৩।    যোগাযোগঃ

জোনাল সেটেলমেন্ট অফিসার, বিভাগীয় রাজস্ব কমপ্লেক্স,পোর্ট রোড্‌ বরিশাল।